বিএসএফ-বিজিবি জওয়ানদের রাখী পরালেন মহিলা মোর্চার সদস্যরা




আগরতলা: রোববার (২৬ আগস্ট) রাখী বন্ধন উৎসব। বৃটিশ শাসনাধীন অবিভক্ত ভারতে বঙ্গভঙ্গ রোখতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রাখী বন্ধন উৎসবের সূচনা করে ছিলেন। এই উৎসব এখনো প্রচলিত রয়েছে। রাখী বন্ধনের আগের সন্ধ্যায় আখাউড়া সীমান্তে গিয়ে রাখী বন্ধন উৎসব পালন করলো ত্রিপুরা প্রদেশ বি জে পি'র মহিলা মোর্চার সদস্যরা। তারা ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী(বি এস এফ) জওয়ান, বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বি জি বি এবং সীমান্তে আসা বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের হাতে রাখী পরিয়ে দেন ও মিষ্টি মুখ করান।

রাখী বন্ধনের পর নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করতে গিয়ে বি জি বি'র আখাউড়া কোম্পানী কমান্ডেন্ট মো: মুক্তার হোসেন বলেন রাখী বন্ধন সম্পর্কে খুব বেশী জানি না তবে ভারতীয় বোনেরা রাখী পরিয়ে দিলো তাতে খুব ভালো লাগছে। ভারতের সকল মানুষ ভাল থাকুক এই প্রার্থনা করি। 


এদিন এই কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন বি জে পি'র ত্রিপুরা প্রদেশ কমিটি'র সম্পাদিকা প্রতিমা ভৌমিক, মহিলা মোর্চার সভানেত্রী পাপিয়া দত্তসহ বহু সদস্যা সমর্থীরা। 

এদিন রাখী বন্ধন সম্পর্কে নিজের অভিমত ব্যাক্ত করতে গিয়ে প্রতিমা ভৌমিক বলেন এটি দলের রাষ্ট্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে তারা আখাউড়া সীমান্তে এসে দুই দেশের সীমান্ত রক্ষী ও সাধারণ মানুষদের রাখী পরিয়ে দিচ্ছেন। এই সকল জওয়ান ভাইয়েরা নিজের পরিবার থেকে বহু দূরে এসে মানুষের নিরাপত্তা রক্ষার কাজ করছেন তাদের হাতে রাখী পরিয়ে তাদের মধ্যে এই অনুভব জাগানো যে ওরা একা নয়। আমরা সকলে মিলে বৃহত্বর পরিবারের সদস্য তাই একা ভাবার কারণ নেই। 


তিনি আরো জানান আখাউড়া সীমান্তে এসে রাখী বন্ধন উৎসব করার আনন্দই আলাদা কারণ এখানে এসে মনে হয় না যে আমরা দুটি দেশের বাসিন্দা। সীমান্তে কাঁটা তারের বেড়া আছে তবে উভয় দেশের মানুষ মনের দিক থেকে একই রকম। কোন দূরত্ব যে নেই এখানে এলে তা আরো ভালো করে অনুভব করা যায়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ